হাবিপ্রবিতে “মোবাইল গেইম ও অ্যাপস টেস্টিং সেন্টার” এর উদ্বোধন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী
Posted: ৩১ মে ২০২২


৩১ মে ২০২২, হাবিপ্রবি, দিনাজপুরঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে স্থাপিত “মোবাইল গেইম ও অ্যাপস টেস্টিং সেন্টার” উদ্বোধন ও পরিদর্শন করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। আজ দুপুর সাড়ে ৩ টায় উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষ্যে ক্যাম্পাসে এসে হাবিপ্রবির প্রশাসনিক ভবনের সামনে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক, পরবর্তীতে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এম. এ. ওয়াজেদ ভবনের সামনে স্থাপিত বিশিষ্ট পরমাণু ও পদার্থবিজ্ঞানী ড. এম. এ. ওয়াজেদ মিয়ার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন হাবিপ্রবির মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান, বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদারসহ অন্যান্যরা।

এরপর তিনি “মোবাইল গেইম ও অ্যাপস টেস্টিং সেন্টার” এর উদ্বোধন শেষে হাবিপ্রবির ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন হাবিপ্রবির মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান, আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার, সকল অনুষদের সম্মানিত ডীন, আই.আর.টি এর পরিচালক, আই.কিউ.এ.সি এর পরিচালক, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের সকল চেয়ারম্যানবৃন্দ, প্রক্টর, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক, পরিকল্পনা উন্নয়ন ও ওয়ার্কস শাখার পরিচালক, জনসংযোগ ও প্রকাশনা শাখার পরিচালক, আইটি সেল এর কো-অর্ডিনেটরসহ আইটি সেলের সকল কর্মকর্তাবৃন্দ।

এ সময় মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, স্বাধীনতার পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান শিক্ষার উপর গুরুত্ব আরোপ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সেই দর্শনকে বাস্তবে রূপ দিচ্ছেন তারই কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তার দূরদর্শী চিন্তার কারণে আজ আমরা আইসিটি শিক্ষায় দক্ষ তরূণ তরুণীদের নিয়ে কাজ করতে পারছি। আজ থেকে ২৩ বছর আগে তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশের গুরুত্ব অনুধাবন করেছিলেন বলেই হাবিপ্রবিসহ একইসাথে ১২ টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছিলেন। তিনি বলেন, গবেষণার দিক থেকে হাবিপ্রবি বেশ এগিয়ে যাচ্ছে, অনেক দক্ষ জনবল পাচ্ছি এখান থেকে। পাশাপাশি তিনি গবেষণা ক্ষেত্রে হাবিপ্রবিকে আরও বেশি সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন। তিনি আরও বলেন আমাদের বর্তমানে আইটি সেক্টর থেকে রপ্তানি আয় এক দশমিক চার বিলিয়ন ডলার। ২০২৫ সালের মধ্যে সেই আয় বৃদ্ধি করে ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সততা ও সাহসিকতায় ৪১ সাল নাগাদ একটি জ্ঞানভিত্তিক উদ্ভাবনী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে উঠবে।

পরিশেষে মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান হাবিপ্রবি পরিদর্শনের জন্য মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক কে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রতিমন্ত্রী মহোদয়। ভবিষ্যতে গবেষণা ক্ষেত্রে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় হাবিপ্রবিতে আরও বেশি বেশি সহায়তা করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।



News and Events

winwin winwin winwin winwin winwin bongda tv winvn SEN88 D9BET